শিরোনাম

নেত্রীর সঙ্গে আলাপ করে সিদ্ধান্ত জানাব: মেয়র খোকন

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে (ডিএসসিসি) আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাননি বর্তমান মেয়র সাঈদ খোকন। রোববার মেয়র পদে দলীয় মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষণার পর সাঈদ খোকনের কোনো প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। ২৪ ঘণ্টায় তার দেখা পাননি সাংবাদিকরা।

তবে একদিন চুপ থেকে আজ মনোনয়ন বঞ্চনা নিয়ে কথা বলেছেন মেয়র খোকন। বিকালে নগরভবনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি।

ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে আওয়ামী লীগ ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপসকে মনোনয়ন দিয়েছে। দলীয় প্রার্থীকে সহযোগিতা করবেন কি না জানতে চাইলে মেয়র খোকন বলেন, ‘আমার নেত্রীর সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানাব, তাছাড়া আমাদের পুরান ঢাকার একটা ঐতিহ্য রয়েছে। আমার মুরব্বিদের সঙ্গে আলাপ করে জানাব। তাছাড়া যেহেতু আমি পূর্ণমন্ত্রীর মর্যাদার মেয়র, তাই আমার অনেক কিছুই আইন কানুন মেনে কথা বলতে হয়।

মনোনয়ন পাননি এ নিয়ে প্রতিক্রিয়া কী জানতে চাইলে মেয়র খোকন বলেন, ‘আমার নেত্রী আমার জন্য যা ভালো মনে করেছেন, তাই করেছেন। আমি খুশি মনে মেনে নিয়েছি। আলহামদুলিল্লাহ।’

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে সর্বশেষ ডিএসসিসি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে প্রথমবারের মতো মনোনয়ন পান অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ছেলে খোকন। নির্বাচনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে বিপুল ভোটে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন খোকন। যদিও ভোটের দিন নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ায় বিএনপি।

২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিলের ওই নির্বাচনে ৫ লাখ ৩৫ হাজার ২৯৬ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন সাঈদ খোকন। ওই বছর ৬ মে মেয়র হিসেবে শপথ নেন তিনি।

আগামী বছর ১৭ মে পর্যন্ত দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়রের দায়িত্বে আছেন সাঈদ খোকন। ২২ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশন (ইসি) এই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর ২৫ ডিসেম্বর থেকে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করে আওয়ামী লীগ। প্রথম দিন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ না করলেও দ্বিতীয় দিন দলীয় ফরম সংগ্রহ করেন সাঈদ খোকন। সেদিন তিনি মনোনয়নপত্র হাতে নিয়ে অঝোরে কাঁদেন। বর্তমান সময়কে ‘কঠিন সময়’ অভিহিত করে সবাইকে তার পাশে থাকার আহ্বান জানান খোকন।

ওই দিন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন মেয়র খোকন। পরে গণমাধ্যমকে বলেন, দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে তিনি শতভাগ আশাবাদী। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় বলেন, দলীয় প্রধান আমাকেই মনোনয়ন দেবেন। তিনিই আমার অভিভাবক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*